ঢাকা   সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  আবরার হত্যা: অমিত সাহা ও রাফাত কারাগারে (আইন ও বিচার)        ভিয়েতনামের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)        বরিশালে দেওয়া বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন মেনন (রাজনীতি)        ভোলায় পুলিশের সঙ্গে ‘তৌহিদী জনতা’র সংঘর্ষ, নিহত ৪ (জেলার খবর)        খালেদার দেখা চান ঐক্যফ্রন্ট নেতারা (রাজনীতি)        আমরা সবাই যেন সতর্কতার সঙ্গে ব্যবস্থা নিই : সাঈদ খোকন (ঢাকা)        প্রধানমন্ত্রীর কাছে রুশ ভাষায় প্রকাশিত তিনটি বই হস্তান্তর (জাতীয়)        ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান চলবেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (জাতীয়)        তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে বিশ্বে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ: জয় (জাতীয়)        সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে হাইকোর্টে তলব (আইন ও বিচার)      

মোজাম্বিকে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে সহস্স্রাধিক মৃত্যুর আশঙ্কা

Logo Missing
প্রকাশিত: 07:20:35 pm, 2019-03-19 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

আজ ডেক্সঃ আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশ মোজাম্বিকে ১৭৭ কিলোমিটার গতিতে আঘাত হানা ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে শত শত মানুষ নিহত হয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ফিলিপ নিউসি বলেছেন, ‘সাইক্লোন আইডাই’তে নিহতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে। ঘূর্ণিঝড় আইডাই গত বৃহস্পতিবার মোজাম্বিকের বন্দরনগরী বেইরা’তে আঘাত হানলেও উদ্ধারকারী দলগুলো তিনদিন পর গত রোববার সেখানে পৌঁছাতে সক্ষম হয়। তখনও সেখানে জোরেসোরে বাতাস বইছিল এবং নদীগুলোর পানি দুই কূল উপচে পড়ছিল। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে কংক্রিটের তৈরি বহু ভবনের ছাঁদ উড়ে গেছে এবং এসব ভবনের ভেতরে মানুষসহ কোনোকিছুরই অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। কর্মকর্তারা এখন পর্যন্ত মোজাম্বিকে শতাধিক লাশ খুঁজে পেয়েছেন তবে নিখোঁজ রয়েছেন শত শত মানুষ। আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের অন্যান্য দেশ মিলিয়ে এই ঘূর্ণিঝড়ে এ পর্যন্ত অন্তত ৩০০ জনের নিশ্চিত মৃত্যু হয়েছে। বেইরা শহর পরিদর্শনের পর প্রেসিডেন্ট নিউসি বলেছেন, ঘূর্ণিঝড়ের আঘাত ছিল ভয়াবহ এবং তিনি বন্যার পানিতে লাশ ভেসে যেতে দেখেছেন। ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব রেড ক্রস এ- রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি (আইএফআরসি) এই ঘূর্ণিঝড়কে ‘ভয়াবহ ও ভয়ঙ্কর’ বলে বর্ণনা করেছে। এদিকে, প্রতিবেশী দেশ জিম্বাবুয়েতে এখন পর্যন্ত ৯৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো ২১৭ ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছেন। প্রতিবেশী আরেক দেশ মালাবি’তে ঘূর্ণিঝড়ের আগে প্রবল বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যায় অন্তত ১২২ জনের মৃত্যু হয়। এখানেও মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানানো হয়।