ঢাকা   সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  আবরার হত্যা: অমিত সাহা ও রাফাত কারাগারে (আইন ও বিচার)        ভিয়েতনামের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)        বরিশালে দেওয়া বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন মেনন (রাজনীতি)        ভোলায় পুলিশের সঙ্গে ‘তৌহিদী জনতা’র সংঘর্ষ, নিহত ৪ (জেলার খবর)        খালেদার দেখা চান ঐক্যফ্রন্ট নেতারা (রাজনীতি)        আমরা সবাই যেন সতর্কতার সঙ্গে ব্যবস্থা নিই : সাঈদ খোকন (ঢাকা)        প্রধানমন্ত্রীর কাছে রুশ ভাষায় প্রকাশিত তিনটি বই হস্তান্তর (জাতীয়)        ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান চলবেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (জাতীয়)        তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে বিশ্বে নেতৃত্ব দেবে বাংলাদেশ: জয় (জাতীয়)        সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে হাইকোর্টে তলব (আইন ও বিচার)      

শিক্ষার উন্নয়নে সীমিত সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব শিক্ষামন্ত্রীর

Logo Missing
প্রকাশিত: 06:45:55 pm, 2019-06-13 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

আজ ডেক্সঃ শিক্ষার উন্নয়নে সীমিত সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। তিনি বলেছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কিংবা কোচিং সেন্টারগুলোতে শিক্ষকরা যা পড়াচ্ছেন, তা খুব সহজেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছানো সম্ভব। রাজধানীর একটি হোটেলে গতকাল বৃহস্পতিবার সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (সেসিপ) উদ্যোগে ‘মাধ্যমিক পর্যায়ে শিখন-শেখানো কার‌্যক্রমে ই-লার্নিং এর ব্যবহার’ বিষয়ক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। আলোচনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। নামীদামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সন্তানদের ভর্তি করানোর জন্য অভিভাবকদের আপ্রাণ চেষ্টার প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, আমাদের বাবা-মা রা পাগল হয়ে যান ভিকারুন নিসা, নটরডেমসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সন্তানকে ভর্তির জন্য কোচিং করাতে। ওইসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বা কোচিং সেন্টারে যেসব শিক্ষকের কাছে তারা পড়বে তাদের ক্লাসটি কি সরাসরি বাংলাদেশের প্রতিটি শিক্ষার্থীর কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়না ? এই পৌঁছানোর কাজটি বিনামূল্যে করা সম্ভব। ইন্টারনেটে এডুকেশন মেটেরিয়াল এক্সেস করলে খরচ হবে না, আমরা সেই জায়গাটুকু নিতে পারি। সেটা সরকার করতে পারে। তিনি বলেন, উন্নত বিশ্বের অনুসরণ করে আমরা গর্তের মধ্যে পড়তে রাজি না, এমন জিনিস করব যেটার উদ্দেশ্য সফল হবে এবং ধরে রাখতে পারব। বঙ্গবন্ধু ডিজিটাল ইউনিভারসিটির ভিসি মুনাজ আহমেদ নূর, বুয়েটের শিক্ষক মো. কায়কোবাদ, এথিকস অ্যাডভান্স টেকনলজির মহাব্যবস্থাপক মবিন খান প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন।