ঢাকা   মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯ | ২৮ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  বেসরকারি খাতে চলাচলকারী ট্রেনগুলোর আয় বাড়লেও কমেছে রেলের আয় (জাতীয়)        প্রশাসনেও শুদ্ধি অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার (জাতীয়)        সিরিজে অধিনায়কের চোখে প্রাপ্তি (ক্রিকেট)        হারের কারণ জানা থাকলেও সমাধান অজানা (ক্রিকেট)        রুবেলের ৭ উইকেট ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে (ক্রিকেট)        ন্যাটোতে রুশ অস্ত্রের কোনো ঠাঁই নেই: ট্রাম্প (আন্তর্জাতিক)        ইরাকে সরকার বিরোধী বিক্ষোভে ১ মাসে নিহত ৩১৯ (আন্তর্জাতিক)        স্পেনের সাধারণ নির্বাচনে ফের জয়ী ক্ষমতাসীন সোশ্যালিস্ট পার্টি (আন্তর্জাতিক)        বাবরি মসজিদের রায় : জমি সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত ২৬ নভেম্বর (আন্তর্জাতিক)        বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করলেন বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট (আন্তর্জাতিক)      

ঝিনাইগাতীতে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগে ইউপি সদস্যকে গ্রেফতার

Logo Missing
প্রকাশিত: 03:13:21 pm, 2019-10-15 |  দেখা হয়েছে: 10 বার।

ঝিনাইগাতী সংবাদদাতা:

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে হানিফ উদ্দিন (৫০) নামে এক ইউপি সদস্যকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। হানিফ উদ্দিন উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়নের কবিরাজপাড়া গ্রামের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য। গত ১৩ অক্টোবর রবিবার তাকে গ্রেফতার করা হয়। গতকাল সোমবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানায়, ৯ অক্টোবর বুধবার কবিরাজপাড়া গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে আবু সাইদের বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। রাত ৯ টার দিকে ওই গ্রামের জমসেদ আলীর ছেলে খবির (২০) মকবুল হোসেনের ছেলে নুরুজ্জামান (২০) জয়নাল আবেদীনের ছেলে শান্ত (১৮) ইসমাইল হোসেনের ছেলে জিহাদ (১৮) ওই বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে ৪র্থ শ্রেণীর এক ছাত্রী (১২) কে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ চালায়। ওই ধর্ষিতা ঘাগড়া পুটলপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী। মৃত পিতার কণ্যা মাতা বিদেশে থাকায় চাচার আশ্রয়ে রয়েছে ওই ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী।

ঘটনার পরদিন ধর্ষকদের পরিবারের লোকজন ধর্ষিতাকে আটকে রেখে ইউপি সদস্য হানিফ উদ্দিনসহ গ্রামের অন্যান্য লোকজন ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়া ও ধর্ষণের আলামত নষ্টের চেষ্টায় লিপ্ত হন। খবর পেয়ে রবিবার দুপুরে থানা পুলিশ ইউপি সদস্য হানিফ উদ্দিনকে গ্রেফতার করে।

এ ব্যাপারে ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রীর চাচা বাদশা আলী বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। রবিবার বিকালে শেরপুরের পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজিম ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেন। এ সময় পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

ঝিনাইগাতী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু বকর ছিদ্দিক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের ব্যাপারে পুলিশি অভিযান চলছে।