ঢাকা   মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জামালপুরে গণপ্রকৌশল দিবস ও আইডিইবি’র ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে পদোন্নতি পেলেন ৪ পুলিশ সদস্য (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে ৫ গ্রাম হেরোইনসহ আটক-৬ (জামালপুরের খবর)        মেলান্দহে অবৈধ ড্রেজার মেশিন আগুনে জ্বালিয়ে দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহমুদা বেগম (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে দীপ্ত টিভির ৪র্থ বর্ষে পর্দাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠান (জামালপুরের খবর)        দেওয়ানগঞ্জে গ্রাহকদের সাথে ইসলামপুরের পল্লী বিদ্যুৎ ইলেক্ট্রিশিয়ান জাকিউলের প্রতারণা (জামালপুরের খবর)        আরব আমিরাতের আরও বড় আকারের বিনিয়োগ প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)        সড়ক আইনের প্রথম দিন: রাজধানীতে ৮৮টি মামলা, সোয়া লাখ টাকা জরিমানা (জাতীয়)        পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রেখে সেলাই, রংপুরে প্রসূতির মৃত্যু (দেশজুড়ে)        নওগাঁয় ট্রাক চাপায় মা-মেয়ে নিহত (ঘটনা-দুর্ঘটনা)      

চাঁদপুরে মেঘনার পাড়ে ফের ভাঙন, ফেলা হচ্ছে বালির ব্যাগ

Logo Missing
প্রকাশিত: 11:11:58 pm, 2019-10-15 |  দেখা হয়েছে: 6 বার।

আ.জা.ডেক্সঃ

তীব্র স্রোতে চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় মেঘনা পাড়ে আবারও ভাঙন হয়েছে। চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ জানান, গত সোমবার রাতে হঠাৎ চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের হরিসভা এলাকায় মেঘনা নদীর ভাঙন দেখা দেয়। মুহূর্তেই বাঁধের ৪০টি মিটার এলাকা মেঘনা গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এ সময় নদী তীর লাগোয়া কয়েকটি বসতঘর বিলীন হয়ে যায়। মেঘনার তীব্র স্রোতের হরিসভা এলাকায় ভাঙন দেওয়ার কথা নিশ্চিত করে চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হান জানান, ভাঙনে বসতঘর হারা লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। গত সোমবার রাত থেকে গতকাল মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ভাঙন এলাকায় ছয় শতাধিক বালিভর্তি জিও টেক্সটাইল ব্যাগ ফেলা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখন মজুদকৃত ৩ হাজার বস্তা বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হবে। এরইমধ্যে ভাঙনে ৫/৬টি বসতঘর বিলীন হয়ে গেছে এবং নদীতীরে বসবাসকারী আরো ১০/১২টি পরিবার আতঙ্কে রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় বাসিন্দা ক্ষতিগ্রস্ত শ্যামল রায়, দুখু ঘোষ এ নদী ভাঙনে বসতঘর ছাড়া হয়েছে। তারা অভিযোগ করেন, প্রতিবছরই হরিসভা এলাকায় নদী ভাঙছে অথচ ভাঙন রোধে স্থায়ী কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। ভাঙন এলাকার পৌরসভার কাউন্সিলর ছিদ্দিকুর রহমান ঢালী জানান, গত আগস্ট মাসের শুরুতে পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় মেঘনার তীব্র ভাঙন দেখা দেয়। ওই সময় প্রায় ১০টি বসতঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। ভাঙন রোধে বালিভর্তি ব্যাগ ফেলাও হয়। তিনি বলেন, মেঘনা নদীতীর রক্ষায় স্থায়ী ব্যবস্থা না নেওয়া হলে পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী হরিসভা মন্দির অন্যান্য বসতঘর ও ব্যবসায়িক স্থাপনাসহ পুরো পুরানবাজার এলাকা মেঘনা গর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে। এ ভাঙনের খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছেন।