ঢাকা   মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯ | ২৮ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  বেসরকারি খাতে চলাচলকারী ট্রেনগুলোর আয় বাড়লেও কমেছে রেলের আয় (জাতীয়)        প্রশাসনেও শুদ্ধি অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার (জাতীয়)        সিরিজে অধিনায়কের চোখে প্রাপ্তি (ক্রিকেট)        হারের কারণ জানা থাকলেও সমাধান অজানা (ক্রিকেট)        রুবেলের ৭ উইকেট ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে (ক্রিকেট)        ন্যাটোতে রুশ অস্ত্রের কোনো ঠাঁই নেই: ট্রাম্প (আন্তর্জাতিক)        ইরাকে সরকার বিরোধী বিক্ষোভে ১ মাসে নিহত ৩১৯ (আন্তর্জাতিক)        স্পেনের সাধারণ নির্বাচনে ফের জয়ী ক্ষমতাসীন সোশ্যালিস্ট পার্টি (আন্তর্জাতিক)        বাবরি মসজিদের রায় : জমি সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত ২৬ নভেম্বর (আন্তর্জাতিক)        বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করলেন বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট (আন্তর্জাতিক)      

জয় বাংলা জাতীয় স্লোগান হওয়া উচিত: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

Logo Missing
প্রকাশিত: 11:09:45 pm, 2019-10-19 |  দেখা হয়েছে: 8 বার।

আ.জা.ডেক্সঃ

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ. ক .ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ‘জয় বাংলা’ স্লোগানটাই অস্ত্রের মত কাজ করেছে। জাতিকে উজ্জীবিত করেছে। তাই এটি জাতীয় স্লোগান হওয়া উচিত। গতকাল শনিবার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে নবনির্মিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন শেষে এক আলোচনা সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন। মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সম্মানী ভাতা বৃদ্ধি ও চিকিৎসা ভাতা চালুর পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ লক্ষ্যে কাজ করছে। তিনি বলেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যাতে মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত স্থানসমূহ সম্পর্কে জানতে পারে সেজন্য মুক্তিযুদ্ধের সম্মুখ সমরের স্থান এবং বধ্যভূমিসমূহ একই ডিজাইনে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এ সময় মন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আধুনিক বাংলাদেশ গড়তে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন সকল উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় প্রায় ২ কোটি ৩৪ লাখ টাকায় এ কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়। নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার ও মোহাম্মদ আলী, সি আইপি ফেরদৌস আহম্মেদ মামুন ভূইয়া ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদসহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা করেন।