ঢাকা   মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জামালপুরে গণপ্রকৌশল দিবস ও আইডিইবি’র ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে পদোন্নতি পেলেন ৪ পুলিশ সদস্য (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে ৫ গ্রাম হেরোইনসহ আটক-৬ (জামালপুরের খবর)        মেলান্দহে অবৈধ ড্রেজার মেশিন আগুনে জ্বালিয়ে দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহমুদা বেগম (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে দীপ্ত টিভির ৪র্থ বর্ষে পর্দাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠান (জামালপুরের খবর)        দেওয়ানগঞ্জে গ্রাহকদের সাথে ইসলামপুরের পল্লী বিদ্যুৎ ইলেক্ট্রিশিয়ান জাকিউলের প্রতারণা (জামালপুরের খবর)        আরব আমিরাতের আরও বড় আকারের বিনিয়োগ প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)        সড়ক আইনের প্রথম দিন: রাজধানীতে ৮৮টি মামলা, সোয়া লাখ টাকা জরিমানা (জাতীয়)        পেটে গজ-ব্যান্ডেজ রেখে সেলাই, রংপুরে প্রসূতির মৃত্যু (দেশজুড়ে)        নওগাঁয় ট্রাক চাপায় মা-মেয়ে নিহত (ঘটনা-দুর্ঘটনা)      

আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন ড. ইউনূস

Logo Missing
প্রকাশিত: 09:25:34 pm, 2019-11-03 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

আ.জা. ডেক্স:

গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স থেকে চাকরিচ্যুতদের করা পাঁচ মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন নোবেলজয়ী মুহাম্মদ ইউনূস। ঢাকার দ্বিতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান জাকিয়া পারভীন গতকাল রোববার তৃতীয় শ্রম আদালতের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে তার জামিন মঞ্জুর করেন। এর মধ্যে তিনটি মামলায় ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ছিল। হাই কোর্ট তাকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলেছিল। বাকি দুটি মামলায় ৫ নভেম্বর দিন ধার্য থাকলেও বিদেশ সফরের সূচি থাকায় আগাম জামিনের আবেদন করেন ড. ইউনূস। শুনানি শেষে বিচারক জাকিয়া পারভীন প্রত্যেক মামলায় ১০ হাজার টাকা করে মোট ৫০ হাজার টাকা মুচলেকায় এ জামিন মঞ্জুর করেন বলে আদালতের রেজিস্ট্রার ওয়াসিউর রহমান জানান। আগামীতে আইনজীবীর মাধ্যমে হাজিরা দেওয়ার অনুমতি চেয়ে আরেকটি আবেদন করেছিলেন ইউনূস। বিচারক তার আবেদন মঞ্জুর করে বলেছেন, অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ইউনূসকে অবশ্যই হাজির থাকতে হবে।

গ্রামীণ ট্রাস্টভুক্ত প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স থেকে চাকরিচ্যুত করায় শ্রম আদালতে এই পাঁচ মামলা দায়ের করা হয়। পাঁচ বাদী হলেন- গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের জুনিয়র এমআইএস কর্মকর্তা (কম্পিউটার অপারেটর) আবদুস সালাম, শাহ আলম, এমরানুল হক, হোসাইন আহমদ ও আবদুল গফুর। তাদের মধ্যে শাহ আলম প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক, আবদুস সালাম প্রচার সম্পাদক এবং এমরানুল সদস্য পদে ছিলেন। ইউনিয়ন গঠন করার কারণে তাদের বেআইনিভাবে চাকরিচ্যুত করা হয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়। গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের চেয়ারম্যান ইউনূসের সঙ্গে ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীনকেও এসব মামলায় আসামি করা হয়। এর মধ্যে তিন মামলায় তৃতীয় শ্রম আদালত গত ৮ অক্টোবর তিন আসামিকে হাজিরের নির্দেশ দিয়ে সমন জারি করে। সে অনুযায়ী নাজনীন সুলতানা ও আবু আবেদীন ৯ আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করলে তাদের জামিন দেন বিচারক। আর ইউনূসের ভাই মুহাম্মদ ইব্রাহীম হাই কোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। সেখানে বলা হয়, ইউনূস বিদেশে আছেন, দেশে ফিরে আদালতে যাবেন। বিমানবন্দরে তাকে যেন হয়রানি করা না হয়, সে বিষয়ে হাই কোর্টের নির্দেশনা চাওয়া হয় ওই আবেদনে। শুনানি শেষে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের বেঞ্চ গত ২৮ অক্টোবর ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণ করতে বলে। সেই সঙ্গে বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে তাকে হয়রানি না করতে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাকে নির্দেশ দেওয়া হয়।