ঢাকা   ০৩ জুন ২০২০ | ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জামালপুরে ৬শ অসহায় পরিবারকে বিজিবির ত্রাণ বিতরণ (জামালপুরের খবর)        জামালপুরবাসীর স্বাস্থ্যসেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিতে চাই: আশরাফুল ইসলাম বুলবুল (জামালপুরের খবর)        করোনা দুর্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের সমস্যা নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন-মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)        গন্তব্যে পৌছবে কি ছানুর নৌকা (জামালপুরের খবর)        বেতন ও বোনাসের টাকায় ঈদ সামগ্রী নিয়ে দেড়শ মধ্যবিত্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন কিরন আলী (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে ভাগ্য বিড়ম্বিত শিশুদের মাঝে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ। (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে তরুনদের সহায়তায় দুইশত পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ (জামালপুরের খবর)        ময়মনসিংহে ৩শ দরিদ্র পরিবারের মাঝে সেনা প্রধানের ঈদ উপহার পৌঁছে দিলেন আর্টডক সদস্যরা (ময়মনসিংহ)        করোনা যোদ্ধা নার্সিং সুপারভাইজার শেফালী দাস শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন (ময়মনসিংহ)        বিদ্যানদীর মত সকল সামাজিক সংগঠন যদি এই দুর্যোগের সময়ে এগিয়ে আসে তবে সরকারের উপর চাপ অনেকংশে কমে যাবে -মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)      

আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন ড. ইউনূস

Logo Missing
প্রকাশিত: 09:25:34 pm, 2019-11-03 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

আ.জা. ডেক্স:

গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স থেকে চাকরিচ্যুতদের করা পাঁচ মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন নোবেলজয়ী মুহাম্মদ ইউনূস। ঢাকার দ্বিতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান জাকিয়া পারভীন গতকাল রোববার তৃতীয় শ্রম আদালতের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে তার জামিন মঞ্জুর করেন। এর মধ্যে তিনটি মামলায় ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ছিল। হাই কোর্ট তাকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলেছিল। বাকি দুটি মামলায় ৫ নভেম্বর দিন ধার্য থাকলেও বিদেশ সফরের সূচি থাকায় আগাম জামিনের আবেদন করেন ড. ইউনূস। শুনানি শেষে বিচারক জাকিয়া পারভীন প্রত্যেক মামলায় ১০ হাজার টাকা করে মোট ৫০ হাজার টাকা মুচলেকায় এ জামিন মঞ্জুর করেন বলে আদালতের রেজিস্ট্রার ওয়াসিউর রহমান জানান। আগামীতে আইনজীবীর মাধ্যমে হাজিরা দেওয়ার অনুমতি চেয়ে আরেকটি আবেদন করেছিলেন ইউনূস। বিচারক তার আবেদন মঞ্জুর করে বলেছেন, অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ইউনূসকে অবশ্যই হাজির থাকতে হবে।

গ্রামীণ ট্রাস্টভুক্ত প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স থেকে চাকরিচ্যুত করায় শ্রম আদালতে এই পাঁচ মামলা দায়ের করা হয়। পাঁচ বাদী হলেন- গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের জুনিয়র এমআইএস কর্মকর্তা (কম্পিউটার অপারেটর) আবদুস সালাম, শাহ আলম, এমরানুল হক, হোসাইন আহমদ ও আবদুল গফুর। তাদের মধ্যে শাহ আলম প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক, আবদুস সালাম প্রচার সম্পাদক এবং এমরানুল সদস্য পদে ছিলেন। ইউনিয়ন গঠন করার কারণে তাদের বেআইনিভাবে চাকরিচ্যুত করা হয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়। গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের চেয়ারম্যান ইউনূসের সঙ্গে ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীনকেও এসব মামলায় আসামি করা হয়। এর মধ্যে তিন মামলায় তৃতীয় শ্রম আদালত গত ৮ অক্টোবর তিন আসামিকে হাজিরের নির্দেশ দিয়ে সমন জারি করে। সে অনুযায়ী নাজনীন সুলতানা ও আবু আবেদীন ৯ আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করলে তাদের জামিন দেন বিচারক। আর ইউনূসের ভাই মুহাম্মদ ইব্রাহীম হাই কোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। সেখানে বলা হয়, ইউনূস বিদেশে আছেন, দেশে ফিরে আদালতে যাবেন। বিমানবন্দরে তাকে যেন হয়রানি করা না হয়, সে বিষয়ে হাই কোর্টের নির্দেশনা চাওয়া হয় ওই আবেদনে। শুনানি শেষে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের বেঞ্চ গত ২৮ অক্টোবর ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণ করতে বলে। সেই সঙ্গে বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে তাকে হয়রানি না করতে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাকে নির্দেশ দেওয়া হয়।