ঢাকা   মঙ্গলবার ২৮ জানুয়ারী ২০২০ | ১৫ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  মুজিববর্ষ উপলক্ষে সশস্ত্র বাহিনী বোর্ডের কম্বল বিতরণ (জামালপুরের খবর)        ইসলামপুরে যত্রতত্র ডাক্তারী পরীক্ষা ছাড়াই পশু জবাই : জনস্বাস্থ্য হুমকীর মুখে (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে ছাত্রলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত (জামালপুরের খবর)        দেওয়ানগঞ্জে একই পরিবারে তিন প্রতিবন্ধী (জামালপুরের খবর)        বকশিগঞ্জ গ্রামীণ রাস্তায় শ্রমিকদের সাথে মাটি কাটলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (জামালপুরের খবর)        ছোনটিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া (জামালপুরের খবর)        মামুন স্মৃতি পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ে এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া (জামালপুরের খবর)        ইসলামপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের সেবার মান উন্নয়ন বিষয়ক মুখোমুখি সভা (জামালপুরের খবর)        সাংবাদিক এম শফিকুল ইসলাম ফারুকের পিতা আনিছুর রহমান আর নেই (জামালপুরের খবর)        শরিফপুর ইউনিয়ন পরিষদে সুলার প্যানেল বিতরণ (জামালপুরের খবর)      

১০ ডিসেম্বর : জামালপুর হানাদার মুক্ত দিবস পালিত

Logo Missing
প্রকাশিত: 03:02:30 am, 2019-12-11 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

এম.এ.রফিক:

১০ ডিসেম্বর জামালপুর হানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে শহরের দয়াময়ী মোড়ে বীরমুক্তিযোদ্ধারা সমবেত হয়। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক, পুলিশ সুপার, দেলোয়ার হোসেন বিপিএম বার, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজীব কুমার সরকার, জামালপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াছমিন, বীরমুক্তিযোদ্ধা সুজায়েত আলী, বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, হায়দার আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ আতিকুর রহমান ছানা ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবম জাফর ইকবাল জাফু প্রমুখ।

আলোচনা শেষে শহরের প্রধান সড়কে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি বকুলতলা গিয়ে শেষ হয়। জানা গেছে, ১৯৭১ সালের এই দিনে শত্রু মুক্ত হয় জামালপুর। মুক্ত জামালপুরে ওড়ানো হয় লাল-সবুজের পতাকা। ৯ ডিসেম্বর রাতভর পাক হানাদার বাহিনীর প্রধান ক্যাম্প জামালপুর শহরের পিটিআই ঘাঁটির উপর চতুমূখি গোলার আক্রমণ চালানো হয়। এই আক্রমণে ৪ শতাধিক পাকসেনা নিহত এবং আহত হয় আরো শতাধিক। ১০ ডিসেম্বর ভোরে মৃত্যুঞ্জয়ী খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক মুন্সীর নেতৃত্বে হাজারো মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীনতাকামী মানুষের জয়বাংলা স্লোগানে প্রকম্পিত হয় জামালপুর জেলা শহর। আকাশে ওড়ানো হয় স্বাধীন বাংলার পতাকা।

১০ ডিসেম্বর জামালপুর মুক্তদিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক বলেন, প্রশাসনের সকল কাজে অগ্রাধিকার থাকবে মুক্তিযোদ্ধাদের কাজ। পুলিশ সুপার দেলোয়ার হোসেন বিপিএম বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের অহংকার। যে কোন প্রয়োজনে সরাসরি আমার সাথে যোগাযোগ করবেন। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াছমিন বলেন, সদর উপজেলা প্রশাসন সর্বদা মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সকল কাজে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। সরকার যে সকল সুযোগ সুবিধা প্রদান করে আসছে দ্রুত সময়ের মধ্যে মুুক্তিযোদ্ধাদের হাতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য আমি কাজ করে যাচ্ছি।