ঢাকা   ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  বিজয় দিবসে যান চলাচলে ডিএমপির নির্দেশনা (জাতীয়)        ড. কামালের আচরণ ষড়যন্ত্রের একটি অংশ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (রাজনীতি)        নির্বাচনী প্রচারণায় বুধবার সিলেট যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী (রাজনীতি)        লালমনিরহাট সীমান্তে রাবার বুলেটে ৪ বাংলাদেশি আহত, বিএসএফের দুঃখ প্রকাশ (জেলার খবর)         ভাষাসৈনিক বিমল রায় চৌধুরী আর নেই (জাতীয়)         বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ (জাতীয়)        আওয়ামী লীগের ইশতেহার প্রকাশ মঙ্গলবার (রাজনীতি)         সন্ত্রাস করলে কোনো দলই ছাড় পাবে না: ইসি রফিকুল (জাতীয়)        স্বরূপে ফিরতে পারেননি ড. কামাল: ওবায়দুল কাদের (রাজনীতি)        শেষ পর্যন্ত নির্বাচনের মাঠে থাকব: ফখরুল (রাজনীতি)      

এলপিজি টার্মিনাল নির্মাণের বিষয়ে আমিরাতের সঙ্গে আলোচনা করবে বাংলাদেশ

Logo Missing
প্রকাশিত: 11:37:34 pm, 2018-10-03 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

আজ ডেক্স

দেশে একটি তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাস (এলপিজি) টার্মিনাল নির্মাণের বিষয়ে আলোচনার জন্য দুবাইভিত্তিক আমিরাত ন্যাশনাল অয়েল কোম্পানির (ইএনওসি) সঙ্গে আলোচনা করবে বাংলাদেশ। রাষ্ট্রায়ত্ত বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) পরিচালক সৈয়দ মোহাম্মদ মোজাম্মেল হককে উদ্ধৃত করে রয়টার্সের প্রতিবেদনে এতথ্য জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, এলপিজি টার্মিনাল নির্মাণে যৌথ উদ্যোগের প্রকল্প নিতে ইএনওসি আমাদের কাছে একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছে। ঢাকায় আমাদের কার্যালয়ে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনার জন্য তাদেরকে আমরা আমন্ত্রণ জানিয়েছি। ১১ অক্টোবর তাদের আসার কথা রয়েছে। টার্মিনালের সক্ষমতা ও অন্যান্য বিস্তারিত বিষয় ওই বৈঠকে আলোচনা হবে বলে জানান তিনি। বাংলাদেশ মূলত ওমান ও কাতার থেকে এলপিজি আমদানি করে থাকে জানিয়ে মোজাম্মেল বলেন, এলপিজির পরিবহন খরচ এখন টনপ্রতি প্রায় ১০০ ডলার। কিন্তু টার্মিনাল তৈরি হলে এটা ৩০ ডলারে নেমে আসতে পারে। কারণ তখন বড় জাহাজ নোঙ্গর করতে পারবে। এর ফলে খুচরা গ্রাহকরা ১০ শতাংশ কম দামেই তা কিনতে পারবে। দেশের প্রথম নির্মিতব্য গভীর সমুদ্র বন্দরের কাছে মহেশখালী দ্বীপের মাতারবাড়িতে ওই টার্মিনাল নির্মিত হতে পারে বলে এই কর্মকর্তা জানান। প্রাকৃতিক গ্যাসের সরবরাহ ঘাটতি মোকাবেলায় সরকার বাসা বাড়িতে এলপিজির ব্যবহার উৎসাহিত করে আসছে। রান্না ও পরিবহনের পাশাপাশি পেট্রোকেমিক্যাল কারখানাতেও এলপিজি ব্যবহার হয়। বিপিসির এই কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশে এখন ১০ লাখ টন এলপিজির চাহিদার বিপরীতে ৬ লাখ টনের সরবরাহ আছে। ২০২২ সাল নাগাদ এই চাহিদা ২০ লাখ টনে পৌঁছাবে। কারণ তখন বাংলাদেশি গৃহস্থালীর রান্নার গ্যাসের একমাত্র উৎসে হবে এলপিজি। বাংলাদেশে নিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত ডঃ সাইদ বিন হাযার আলশেহি গত বছর নভেম্বরে বিদ্যুৎ জ¦ালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের দেখা করে জ¦ালানি খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন। ইএনওসি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফ আল ফায়সাল তখন বলেন, ইএনওসি বাংলাদেশের জ¦ালানি খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। আমিরাত ন্যাশনাল ওয়েল কোম্পানির অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এলএনজি ও জেট ফিউয়েল সরবরাহ, রিফাইনারি স্থাপন, এফএসআরইউ ও স্থল ভিত্তিক টার্মিনাল নির্মাণ করতে ইচ্ছে প্রকাশ করেন তিনি।