ঢাকা   ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  সরিষাবাড়ীতে গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত (জামালপুরের খবর)        বকশিগঞ্জ শিক্ষার্থীবিহীন দুস্থ্য প্রতিবন্ধী কারিগরি শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র : ৯ প্রতিবন্ধীর শিক্ষাবৃত্তি (জামালপুরের খবর)        শেরপুরে আখেরী মুনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের উরশ (জেলার খবর)        শ্রীবরদীতে বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচেতনতা শীর্ষক প্রচার, প্রেস ব্রিফিং ও সেমিনার অনুষ্ঠিত (জেলার খবর)        একনেকে ১৩ হাজার ৬৩৯ কোটি ব্যয়ে ৯ প্রকল্প অনুমোদন (জাতীয়)        পানির দাম ৮০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব অযৌক্তিক: টিআইবি (জাতীয়)        চীনকে মাস্ক-গ্লাভসসহ চিকিৎসা সামগ্রী দিল বাংলাদেশ (জাতীয়)        কচুরিপানা খেতে বলিনি, গবেষণা করতে বলেছি: পরিকল্পনামন্ত্রী (জাতীয়)        দেশে করোনা ভাইরাসের রোগী মেলেনি, আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ (জাতীয়)        শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশ দ্বিতীয়: সেনাপ্রধান (জাতীয়)      

ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা, মিলেছে আলামত

Logo Missing
প্রকাশিত: 01:22:44 am, 2020-01-07 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

আ.জা. ডেক্স:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে রাজধানীর কুর্মিটোলা এলাকায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই ছাত্রীর বাবা গতকাল সোমবার সকালে অজ্ঞাতপরিচয় একজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন বলে ক্যান্টনমেন্ট থানার ওসি কাজি শাহান হক জানিয়েছেন। তিনি বলেন, মামলা গ্রহণের পরপরই তদন্ত শুরু হয়েছে। ঘটনাস্থল ও আসামি শনাক্ত করার ব্যাপারে প্রয়োজনীয় কাজ চলছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রী গত রোববার সন্ধ্যায় শেওড়ায় তার বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার সময় কুর্মিটোলায় বাস থেকে নামার পরপরই তাকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায় রাতে। রাত পৌনে ১টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে রাতেই বিক্ষোভ শুরু হয় ক্যাম্পাসে। ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিচার দাবিতে রাতে দফায় দফায় মিছিল-সমাবেশ করে বিভিন্ন সংগঠন। ভোরের দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশনে বসেন এক ছাত্র। গতকাল সোমবার সকাল ১০টার দিকে শিক্ষার্থীরা রাজু ভাস্কর্য এলাকায় জড়ো হতে শুরু করলে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে পুরো ক্যাম্পাস। সাড়ে ১০টায় সেখানে ছাত্রলীগের প্রতিবাদ সমাবেশ শুরু হয়। বিভিন্ন হলের ছাত্রলীগকর্মীরা ছাড়াও ডাকসু ও হল সংসদের নেতা এবং সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাতে যোগ দেন। একই দাবিতে সন্ত্রাসবিরোধী ছাত্র ঐক্যের ব্যানারে কয়েকশ শিক্ষার্থী দুপুরে শাহবাগ মোড় অবরোধ করলে প্রায় দেড় ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে।

স্বাস্থ্য পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। গতকাল সোমবার দুপুরের পর মেডিকেল পরীক্ষা সম্পন্ন করেছেনে তারা। এদিন বিকেল সোয়া তিনটার দিকে সোহেল মাহমুদ বলেন, ভিকটিমের শরীরে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। তার গলা চেপে ধরা হয়েছিল, গলায় ক্ষত আছে। ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, তাকে ঝোঁপঝাড়ের ভেতরে ফেলার সময় ঝোঁপের গাছের খোঁচায় তার (ছাত্রীর) শরীরের বিভিন্ন জায়গা ছিলে যাওয়ার মতো হয়েছে। তিনি বলেন, ঘটনার একপর্যায়ে ভিকটিম জ্ঞান হারায়। জ্ঞান ফিরে এলে সে দেখে ধর্ষক সেখানে তখনও উপস্থিত। ধর্ষক পেছনে ফিরে মেয়েটির ব্যাগে কিছু একটা খোঁজাখুঁজি করছিল। সেই সুযোগে মেয়েটি সেখানে থেকে পালিয়ে আসে।

ভিকটিমের বিবরণীতে অভিযুক্ত একজনই: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক একজনই বলে জানিয়েছেন গুলশান বিভাগের ডিসি সুদীপ চক্রবর্তী। গতকাল সোমবার ঘটনাস্থল তদন্তে এসে তিনি সাংবাদিকদের ব্রিফ করার সময় একথা বলেন। গুলশান বিভাগের ডিসি বলেন, ভিকটিমের সঙ্গে গত রোববার থেকে একাধিকবার ওসি, এসি ক্যান্টনমেন্টে কথা বলেছেন। ভিকটিমের কথা অনুযায়ী অভিযুক্ত একজন। ভিকটিমের বাবা ইতোমধ্যে একজনের কথা উল্লেখ করেই মামলা করেছেন বলেও তিনি জানান। এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে সুদীপ চক্রবর্তী বলেন, আমরা সার্বিক তদন্তের চেষ্টা করছি। ভিকটিম ঢাকা মেডিকেল কলেজে আছে। দুঃখ প্রকাশ করছি। অপরাধীকে খুঁজে বের করতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছি আমরা। কী আলামত পাওয়া গেছে, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ডিসি বলেন, সন্দেহভাজন আলামত এখন পর্যন্ত যা পাওয়া গেছে তা হলো ভিকটিমের পরিধেয় বস্ত্র। এ ছাড়া তার কাগজপত্র, জুতা, ইনহেলার ও ঘড়িও পাওয়া গেছে। এসবই ভিকটিমের বলেও উল্লেখ করেন তিনি। সুদীপ চক্রবর্তী বলেন, সিআইডি থেকে ক্রাইম সিন ঘটনাস্থলে এসেছে ফরেনসিকের আলামত সংগ্রহ করছে। ঘটনাস্থলে অনেক বেশি নিরাপত্তা থাকে উল্লেখ করে সুদীপ চক্রবর্তী আরও বলেন, এই এলাকায় তেমন জনসমাগম দেখা যায় না। ব্যস্ততম সড়ক, সবাই যাওয়া-আসার মধ্যে থাকে, কেউ থামে না। এটা ক্রাইম হওয়ার মতো জায়গা ছিল না। কিছু হয়তো ঘাস ও গাছ ছিল, ধর্ষক সেই সুবিধা নিয়েছে। এ এলাকায় প্রায়ই ছিনতাইয়ের ঘটনা শোনা যায় এবং এই ঝোপঝাড়ের কারণে সেটা হয় কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখানে ঝোপঝাড় রয়েছে সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য। কিছু গাছ আছে বড়, নিয়মিত ডাল ছাঁটাই করে দেওয়া হয়। এ এলাকায় সার্বক্ষণিক পুলিশ পেট্রোল থাকে, আমরাও নিয়মিত টহল দেই। পাশে গলফ গার্ডেন আছে, এয়ারপোর্ট কাছেই, ফলে নিরাপত্তা বিষয়টি দেখা হয়। ধর্ষকের আলামত ওভাবে পাওয়া যায় নি উল্লেখ করে গুলশান বিভাগের ডিসি বলেন, আমরা তদন্ত করে দেখছি। সিআইডি থেকে যে ক্রাইম সিন এসেছে তারা এখনও আমাদের জানায়নি। পাশাপাশি প্রযুক্তির সহায়তা নিচ্ছি, ম্যানুয়ালি চেষ্টা করছি। সুদীপ চক্রবর্তী বলেন, ঢাকা শহরে সেই পরিস্থিতি নেই যে মুক্ত জায়গায় অপরাধ হবে। তারপরও হলো, এটা দুঃখজনক ঘটনা। আমরা দেখবো নিরাপত্তা বাড়ানোসহ কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়। এখানে বেশ কিছু সিসি ক্যামেরা আছে, সেগুলোসহ নিরাপত্তার জন্য আরও কী কী করা যায় দেখা হবে।