ঢাকা   ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  সরিষাবাড়ীতে গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত (জামালপুরের খবর)        বকশিগঞ্জ শিক্ষার্থীবিহীন দুস্থ্য প্রতিবন্ধী কারিগরি শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র : ৯ প্রতিবন্ধীর শিক্ষাবৃত্তি (জামালপুরের খবর)        শেরপুরে আখেরী মুনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের উরশ (জেলার খবর)        শ্রীবরদীতে বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচেতনতা শীর্ষক প্রচার, প্রেস ব্রিফিং ও সেমিনার অনুষ্ঠিত (জেলার খবর)        একনেকে ১৩ হাজার ৬৩৯ কোটি ব্যয়ে ৯ প্রকল্প অনুমোদন (জাতীয়)        পানির দাম ৮০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব অযৌক্তিক: টিআইবি (জাতীয়)        চীনকে মাস্ক-গ্লাভসসহ চিকিৎসা সামগ্রী দিল বাংলাদেশ (জাতীয়)        কচুরিপানা খেতে বলিনি, গবেষণা করতে বলেছি: পরিকল্পনামন্ত্রী (জাতীয়)        দেশে করোনা ভাইরাসের রোগী মেলেনি, আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ (জাতীয়)        শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশ দ্বিতীয়: সেনাপ্রধান (জাতীয়)      

কামার বাড়িতে কামার নেই নাপিত বাড়িতে নাপিত

Logo Missing
প্রকাশিত: 02:04:25 am, 2020-01-22 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

মোহাম্মদ আলী:

আয়তন ও জনসংখ্যার দিক থেকে জামালপুর পৌরসভার স্বর্ববৃহত্ত গ্রাম পাথালিয়া। নানা পেশাজীবি মানুষের বসবাস ছিল এই গ্রামে। ছিল নাপিত বাড়ি কামার বাড়ি নামে দুইটি পেশাজীবির বিশাল কর্মকান্ড। নানা কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও গ্রামের মানুষের শিক্ষা দীক্ষা এবং রুচিবোধ পরিবর্তন আসায় বাপ দাদার এই সনাতনি পেশাগুলো বেরিয়ে আসছে বর্তমান প্রজন্ম। সময়ের পরিবর্তে এখন আর কামার বাড়িতে কামার নেই, নাপিত বাড়িতে নাপিত।

কয়েক বছর আগেও পাথালিয়া গ্রামের বড় দুইটি বাড়ি দুই সনাতনি পেশাদারীদের নাম অনুসারে পরিচিত ছিল। গ্রামের মানুষের ব্যক্তিগত ও সাংসারিক কাজে এই দুই পেশাজীবিদের ভূমিকা ছিল অপরিহার্য। বাড়ি দুইটি ছিল কামার বাড়ি ও নাপিত বাড়ি। কামার বাড়িতে ছিল সারি সারি কামারের দোকান। নাপিত বাড়িতেও তাই। কামারদের ছন্দময় হাতুড়ির তালে তালে ঘুম ভাঙ্গত প্রতিবেশির। কামার বাড়ির কামারদের কাজে দক্ষতা ও নিপুনতায় মুগ্ধ হয়ে অন্য গ্রামের মানুষরাও আসতেন পাথালিয়া কামার বাড়িতে নানা ব্যবহার্য্য লোহার জিনিসপত্র বানাতে। কামারদের কাজের চাপ ও ভীড় ছিল চোখে পড়ার মত। কামারদের ব্যস্ততায় দিনের পর দিন অপেক্ষা করতে হতো গ্রামকদের। নাপিত বাড়িতে চুল দাড়ি কাটতে গেলেও একই অবস্থা ছিল। ঘন্টার পর অপেক্ষা করতে হতো। কিন্তু সেই সময় এখন আর নেই। সেই দিনের ব্যস্ততা এখন শুধুই স্মৃতি। নানা কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও গ্রামের মানুষের শিক্ষা দীক্ষা এবং রুচিবোধ পরিবর্তন আসায় বাপ দাদার এই সনাতনি পেশাগুলো বেরিয়ে আসছে বর্তমান প্রজন্ম। তাই, এখন কামার বাড়িতে কামার নেই, নাপিত বাড়িতে নাপিত। কামার বাড়ির বর্তমান প্রজন্ম এখন চাকুরীজীবি, ব্যবসায়ি ও অন্যান্য পেশাজীবি। কামারপট্টিতে এখন গড়ে উঠেছে মার্কেট। নাপিত বাড়িতে তাই। নাপিত বাড়িতে আর নাপিতদের দোকান নেই। সেখানেও এখন আধুনিক দোকানপাট ও অট্টালিকা গড়ে উঠেছে। নাপিত বাড়ির কয়েকজন বাপ দাদার পেশায় যুক্ত থাকলেও কামার বাড়ি এখন কামার শূন্য। গ্রামের মানুষ এই ঐতিহ্যবাহী পেশা দুইটির শূণ্যতা অনুভব করছেন হাড়ে হাড়ে।

Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!