ঢাকা   ০৮ এপ্রিল ২০২০ | ২৫ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জামালপুরে সাংবাদিক ও পুলিশকে পিপিই দিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ চৌধুরী (জামালপুরের খবর)        সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে র‌্যাবের কঠোর হুঁশিয়ারি (জামালপুরের খবর)        জামালপুর পৌরসভায় ব্যক্তিগত অর্থে ৫ হাজার ২শ ৯০টি পরিবারকে ত্রাণ দিলেন ছানোয়ার হোসেন ছানু (জামালপুরের খবর)        শাহবাজপুরে স্বল্পমূল্যে খাদ্যশস্য বিতরণ (জামালপুরের খবর)        ঝিনাইগাতীতে কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সংকট (জেলার খবর)        শেরপুরে ত্রাণ চাইতে গিয়ে পৌর কাউন্সিলের বিরুদ্ধে নির্যাতনের শিকারের অভিযোগ! (জেলার খবর)        শেরপুরে কর্মহীন শ্রমিকদের মাঝে বাজুসের খাদ্য সহায়তা প্রদান (জেলার খবর)        চিকিৎসা সংশ্লিষ্টদের জন্য বিশেষ স্বাস্থ্যবীমার ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)        সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ছে ঈদ পর্যন্ত (জাতীয়)        বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের মৃত্যুদন্ডাদেশ কার্যকর হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (জাতীয়)      

দুই মাসে সড়কে প্রাণ হারিয়েছেন ১০২৭জন: জিসিবি

Logo Missing
প্রকাশিত: 01:43:24 am, 2020-03-07 |  দেখা হয়েছে: 5 বার।

আ.জা. ডেক্স:

চলতি বছরের প্রথম দুই মাসে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে ৭৫৫টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১,০২৭ জন নিহত ও ১,৩০১ জন আহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যা যথাক্রমে ১৪১ ও ১৬৬। ১ জানুয়ারি থেকে ২৯ ফেব্রæয়ারি পর্যন্ত বিভিন্ন মহাসড়ক, জাতীয় সড়ক, আন্তঃজেলা সড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে এসব প্রাণঘাতি দুর্ঘটনা ঘটে। পরিবেশ ও নাগরিক অধিকার সংরক্ষণবিষয়ক বেসরকারি সংগঠন গ্রিন ক্লাব অব বাংলাদেশের (জিসিবি) মাসিক জরিপ ও পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। ২৪টি জাতীয় দৈনিক, ১২টি আঞ্চলিক সংবাদপত্র এবং ১০টি অনলাইন নিউজপোর্টাল ও সংবাদ সংস্থার তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয় বলে গতকাল শুক্রবার সংগঠনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

জিসিবির দফতর সম্পাদক শেখ সিরাজ আহমেদ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জানুয়ারিতে ৩৫৭টি দুর্ঘটনায় ৭০ নারী ও ৭৫ শিশুসহ ৪৮৭ জন নিহত এবং ৬২২ জন আহত হন। ফেব্রুয়ারিতে ৩৯৮টি দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত হন যথাক্রমে ৫৪০ জন ও ৬৭৯ জন। নিহতের তালিকায় ৭১ জন নারী ও ৯১টি শিশু রয়েছে।

জিসিবির সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে জানান, তাদের পর্যবেক্ষণে সড়ক দুর্ঘটনার জন্য ১০টি প্রধান কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে। সেগুলো হলো-
১. সড়ক-মহাসড়কে মোটরবাইকসহ তিনচাকার যানবাহন চলাচল বৃদ্ধি।
২. ব্যস্ত সড়কে স্থানীয়ভাবে তৈরি ইঞ্জিনচালিত ক্ষুদ্রযানে যাত্রী ও পণ্য পরিবহন।
৩. চালকদের মধ্যে প্রতিযোগিতা ও বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর প্রবণতা।
৪. ত্রুটিপূর্ণ গাড়ি চলাচল ও লাইসেন্সবিহীন চালক নিয়োগ।
৫. অদক্ষ চালকের কাছে দৈনিক চুক্তিভিত্তিক গাড়ি ভাড়া।
৬. বিধিলঙ্ঘন করে ওভারলোডিং ও ওভারটেকিং।
৭. বিরতি ছাড়াই দীর্ঘ সময় ধরে গাড়ি চালানো।
৮. পথচারীদের মধ্যে সচেতনতার অভাব।
৯. জনবহুল এলাকাসহ দূরপাল্লার সড়কে ট্রাফিক আইন ভাঙা।
১০. বিভিন্ন স্থানে সড়কের বেহালদশা।